১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ । ৩ আশ্বিন, ১৪২৫

কুষ্টিয়ায় অপহৃতদের জীবিত উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক | এপ্রিল ১৯, ২০১৮ - ৯:৪২ অপরাহ্ণ

কুষ্টিয়া ইবি থানার পূর্ব আব্দালপুর এলাকা থেকে দুই অপহৃত ব্যক্তিকে উদ্ধার করেছে ইবি থানা পুলিশ। অপহৃত কামাল হোসেন মিন্টু জানান, গতকাল বুধবার বিকেলে গরু কিনতে আসে ইবি থানার পূর্ব আব্দালপুর এলাকার মুখতারের বাড়িতে। সেখানে তিনটি গরু ৩ লক্ষ ২০ হাজার টাকা দাম চাই মুক্তার আলী। পরবর্তীতে মুক্তার আলীর সাথে ৩ লক্ষ টাকায় দাম দর নির্ধারণ হয়। ৩ লক্ষ টাকা পাওয়ার পর সন্ধ্যায় আমাকে কিল-ঘুসি মারতে থাকে এবং বলে আরো দুই লক্ষ টাকা এনেদে।

গভীর রাতে একটি মাইক্রোবাস এসে আমাকে নিয়ে যায় পূর্ব আব্দালপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে একটি বাগানে। সেখানে গিয়ে মুক্তার ও তার চাচাতো ভাই ফারুক আমাকে আরো দুই লক্ষ টাকা বাড়ি থেকে আনতে চাপ দিতে থাকে। কেন আরও দুই লক্ষ টাকা আনব এমন প্রশ্ন করলে তারা আমাকে ও আমার সাথে থাকা ওচমান মোল্লাকে হত্যার হুমকি দেয়। সেসময় মুক্তার ও মুক্তারের ভাই ফারুক আমাকে জবাই করার হুমকি দেয়। সকলের দিকে মাইক্রোবাসের তোলার চেষ্টা করে আমাদের। আমি তাদেরকে টাকা দেয়ার কথা বলে বাড়িতে ফোন করি। আমার বাড়ির লোকজন কুষ্টিয়া ইবি থানার সাথে যোগাযোগ করে। কুষ্টিয়া ইবি থানা পুলিশ সকাল দশটায় অভিযান চালিয়ে আমাদেরকে উদ্ধার করে। আমি একজন গরু ব্যবসায়ী। অপহৃত কামাল হোসেন মিন্টু ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা থানার মিঠাপুকুর এলাকার মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে।

মিন্টু এর আগেও বেশ কয়েকবার এখানে এসে গরু কিনে নিয়ে গিয়েছি।

ইবি থানার অফিসার ইনচার্জ রতন শেখ জানান, আজ সকালে ৯৯৯ থেকে একটি কল আসে। এর মাধ্যমে আমি জানতে পারি যে দুইজন গরু ব্যবসায়ী অপহরণ হয়েছে এবং তাদের পরিবারের নিকট ২ লক্ষ টাকা চাঁদা চেয়েছে‌। অভিযোগ প্রাপ্ত হয় তৎক্ষণাৎ আমি সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে হরিনারায়নপুর ইউনিয়নের পূর্ব আব্দালপুর গ্রামে অভিযান চালায়। অভিযোগ পার একঘন্টার মধ্যেই অপহৃত ২ব্যক্তিকে উদ্ধার করি। এই অপহরণের সহযোগিতাকারী হিসেবে দুইজনকে আটক করি। আটককৃতরা হলো ইবি থানার হরিনারায়নপুর ইউনিয়নের পূর্ব আব্দালপুর গ্রামের মৃত গোলাম নবী বিশ্বাসের ছেলে শরিফুল(৪০) ও শান্তিদাঙ্গা গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে ইবির গাড়ীচালক লাল্টু হোসেন(৪০)।

এদের বিরুদ্ধে ইবি থানা একটি মামলা হয়েছে। যার মামলা নং-১০ তারিখ ১৯শে এপ্রিল ২০১৮ইং। এদিকে লাল্টুর পিতা ইদ্রিস আলী জানান আমার ছেলে এই অপহরণের বিষয়ে কোন কিছুই জানে না। তাকে ফাঁসানো হয়েছে। সে ইসলামিয়া ইউনিভার্সিটিতে গাড়িচালক হিসেবে চাকরি করে। অপরদিকে কামাল হোসেন মিন্টুর ব্যবসায়ীক পার্টনার ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী থানা এলাকার সুলতান জানান, মিন্টুর কাছে মোক্তার এক লক্ষ ৯০ হাজার টাকা পাবে সেই টাকাটা আদায় করতেই তারা মিন্টুকে আটকে ছিল। এই খবর পেয়ে মিন্টুর স্ত্রী আমার মাধ্যমে মিন্টুর ব্যবহৃত ব্যাংক চেক দিয়ে কুষ্টিয়াতে পাঠায় কিন্তু আমি এসে শুনি মিন্টু থানাতে। এলাকাবাসী জানান, মিন্টু দীর্ঘদিন ধরে মুক্তারের সাথে গরুর ব্যবসা করে আসছিল। গতকাল বুধবার বিকেলে মিন্টু মুক্তার এর বাড়ির পাশে এক চায়ের দোকানে চা খায়। হঠাৎ সকালে শুনি মিন্টুকে অপহরণের দায়ে পুলিশ শরিফুল ও লালটু হোসেনকে আটক করে। কিন্তু ভোরের দিকে একটি মাইক্রোবাস দেখতে পাই এলাকাবাসী।

শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য দিন

সর্বশেষ
পঞ্জিকা
সেপ্টেম্বর ২০১৮
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি
« আগ    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  
ছবি গ্যালারি