১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ । ৪ পৌষ, ১৪২৪

জাবির মেধা তালিকায় স্থান করে নেওয়া চার শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক | নভেম্বর ২৪, ২০১৭ - ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি সহায়তা নিয়ে মেধা তালিকায় স্থান করে নেওয়া চার শিক্ষার্থীকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আটককৃত চার শিক্ষার্থীরা হলেন, নেত্রকোনা সদর উপজেলার হিমাদ্রী সাহা, নেত্রকোণা খালিয়াজুরি উপজেলার রাশিদুল হাসান রাজন, রাজশাহীর বাঘা উপজেলার অলি আহমেদ এবং সাতক্ষীরা আশাশুনী উপজেলার খায়রুল ইসলাম।

ওই চার শিক্ষার্থী কৌশলে সাক্ষাৎকার পরীক্ষা পেরিয়ে ভর্তির যোগ্য হিসেবে বিবেচিতও হয়েছিলেন। বৃহস্পতিবার প্রত্যাশিত বিভাগে ভর্তি হতে গিয়ে শিক্ষকদের হাতে ধরা পড়েন তারা।

‘সি’ ইউনিটের (কলা ও মানবিকী অনুষদ) বিভিন্ন বিভাগে ভর্তি হতে গেলে হাতের লেখা পরীক্ষা করলে তাতে মিল না পাওয়ায় তাদের আটক করা হয়। এরপর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগের মামলা দিয়ে আশুলিয়া থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এ নিয়ে প্রক্সি সহায়তা নেওয়ার অভিযোগে আটক পরীক্ষার্থীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১ জনে। এদের মধ্যে অভিযুক্ত অনেককেই পুলিশে না দিয়ে কেবল লিখিত স্বীকারোক্তির দিয়ে ছাড় পেয়ে যাওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে ইউনিটের ভাইভা বোর্ডের দায়িত্বে থাকা ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সদস্য সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শেখ আদনান ফাহাদ বলেন, ‘সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক হিসেবে ভর্তির ক্ষেত্রে আমরা বাড়তি সতর্কতার জন্য ভর্তিচ্ছুদের কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে থাকি। ভর্তি ফরমে স্বাক্ষর করার আগে ওএমআর শিটের হাতের লেখার সঙ্গে মিলিয়ে দেখার জন্য তাদের সাদা কাগজে লিখতে দেওয়া হয়। ওএমআর শিটের সঙ্গে তাদের কারও হাতের লেখা মেলেনি। তবে এদের সাথে সম্পৃক্ত ভর্তি জালিয়াতের মূল হোতাদের ধরতে পারলে ভালো হতো।’

তবে পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের দায়িত্বে অবহেলা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে। এ বিষয়ে কয়েকজন শিক্ষক জানান, ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্রে এবং পরবর্তী সাক্ষাৎকার বোর্ডে যেসব শিক্ষক ছিলেন তারা যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করেননি। যার কারণে জালিয়াতি করা শিক্ষার্থীগুলো ধরা খায়নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিষয়ে কলা ও মানবিকী অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোজাম্মেল হক বলেন, ‘কেউ অসুদপায় অবলম্বন করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হোক তা আমরা চাই না। ডিন অফিসে অল্প সময়ে অনেক ভর্তিচ্ছুর সাক্ষাৎকার গ্রহণ করতে হয়। তাই আরও নিখুঁতভাবে যাচাই-বাছাইয়ের জন্য বিভাগগুলোকে যাবতীয় কাগজপত্র সরবরাহ করা হয়েছে।’

শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য দিন

সর্বশেষ
পঞ্জিকা
ডিসেম্বর ২০১৭
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি
« নভে    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১