১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ । ৪ পৌষ, ১৪২৪

প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দিতে বিমানবন্দর-গণভবন রাস্তায় থাকবে আ.লীগ

নিজস্ব প্রতিবেদক | অক্টোবর ৬, ২০১৭ - ৭:৫৯ অপরাহ্ণ

রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়ার জন্য ও মিয়ানমারে তাদের উপর নিপীড়ন বন্ধের বিষয়ে জাতিসংঘে ব্ক্তব্য দিয়ে আন্তর্জাতিক মহলে প্রশংসিত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা দিতে বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত রাস্তায় থাকবে আওয়ামী লীগ।

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের জন্য যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা শনিবার সকাল ৯টা ২৫ মিনিটে লন্ডন থেকে ফ্লাইটে করে ঢাকায় ফিরবেন।

তাকে সংবর্ধনা জানাতে দল ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত সড়কের দুপাশে অবস্থান নেবেন বলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল আলম হানিফ জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা জানাতে শনিবার সকাল ৯টার মধ্যে আওয়ামী লীগ ও ১৪ দলের জ্যেষ্ঠ নেতা ও বিশিষ্টজনরা বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে থাকবেন।

“সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে সংবর্ধনা দেওয়ার পর তিনি ভিআইপি রোড (কুড়িল বিশ্বরোড-বনানী-মহাখালী-জাহাঙ্গীর গেট-বিজয়সরণী-গণভবন) দিয়ে যাবেন। সংবর্ধনা সফল করতে বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত রাস্তায় কয়েকটি ভাগে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতারা রাস্তার দুপাশে থাকবেন।”

তবে ‘কোনো ধরনের জনদুর্ভোগ সৃষ্টি না করেই এই সংবর্ধনা দেওয়া হবে’ বলে আগেই আশ্বস্ত করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় পর্যন্ত থাকবে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ, সেখান থেকে শহীদ জাহাঙ্গীর গেইট অংশে স্বেচ্ছাসেবক লীগ, সেখান থেকে মহাখালী পর্যন্ত আশপাশের থানাগুলোর দল ও সহযোগী সংগঠন, সেখান থেকে বনানীর কাকলী অংশে ছাত্রলীগ, সেখান থেকে র‌্যাডিসন হোটেল পর্যন্ত স্বেচ্ছাসেবক লীগ এবং র‌্যাডিসন হোটেল থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত অংশে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ভাগে ভাগে অবস্থান নেবেন বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।জাতিসংঘের কর্মসূচি শেষে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে গত ২৫ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে শেখ হাসিনার পিত্তথলি অপসারণ করা হয়।

কয়েকদিন বিশ্রাম নিয়ে গত সোমবার লন্ডন যান তিনি। অসুস্থতার কারণে ফেরার তারিখ পেছালেও ঢাকার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগের পাশাপাশি অনলাইনে গুরুত্বপূর্ণ দাপ্তরিক কাজও সারছেন প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে ২১ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে বক্তৃতা করেন শেখ হাসিনা; বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সভা ছাড়াও বেশ কয়েকজন সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে অংশ নেন।

সাধারণ অধিবেশনের বক্তৃতায় মিয়ানমারের রোহিঙ্গা সংকট এবং বাংলাদেশের উপর শরণার্থীদের চাপের বিষয়টি বিশ্ব সম্প্রদায়ের কাছে তুলে ধরেন শেখ হাসিনা।

এবিষেয়ে গত মঙ্গলবার ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, “রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের নিকট প্রশংসা কুড়িয়েছেন। সারা দুনিয়া, বিশ্ববাসী শেখ হাসিনার এই সাহসী সিদ্ধান্ত এবং মনের উদারতার প্রশংসা করেছে- এটা বাঙালি জাতির গর্বের বিষয়। রোহিঙ্গাদের সাথে আজকে বাংলাদেশ যে আচরণ করেছে, এটা গোটা বিশ্বে বিরল ঘটনা।

“আর এই জন্য আমরা বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশে ফেরার দিন সংবর্ধনা  দিব। সাথে সাথে দেশের বিশিষ্ট নাগরিকরাও তাকে সংবর্ধনা জানাতে বিমানবন্দরে যাবে। কোনো ধরনের জনদুর্ভোগ সৃষ্টি না করেই এই সংবর্ধনা দেওয়া হবে।”

শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য দিন

সর্বশেষ
পঞ্জিকা
ডিসেম্বর ২০১৭
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি
« নভে    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১