১৯ Jun, ২০১৮ । ৫ আষাঢ়, ১৪২৫

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণায় কুমারখালী তিন দিনব্যাপী জমজমাট উন্নয়ন মেলা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক | জানুয়ারি ১২, ২০১৮ - ৪:০৪ অপরাহ্ণ

সারাদেশের ন্যায় “উন্নয়নের রোল মডেল শেখ হাসিনার বাংলাদেশ” শীর্ষক স্লোগানে দেশের উন্নয়ন কার্যক্রমের সামগ্রিক চিত্র প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে তুলে ধরতে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে তিন দিনব্যাপী জমজমাট উন্নয়ন মেলা শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একযোগে সারাদেশে এ মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষনা করেন। উন্নয়ন মেলার উপলক্ষে সকাল সাড়ে নয়টায় শহরের বঙ্গবন্ধু চত্বর থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। কুমারখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: শাহীনুজ্জামান এ শোভাযাত্রায় নেতৃত্ব দেন। সরকারি কর্মকর্তা, বীরমুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, শিক্ষার্থীরাসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ স্বর্তস্ফুর্তভাবে এ শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করেন।

শোভাযাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মেলার মাঠে এসে সমবেত হয়। এ সময় মেলার মঞ্চে গণভবন থেকে বাংলাদেশ টেলিভিশনের দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনী ভাষণ ও বিভিন্ন জেলার জেলা প্রশাসকসহ তৃণমূল পর্যায়ের মানুষের সাথে ভিডিওকনফারেন্সের মাধ্যমে সরাসরি কথোপকথন বড় পর্দায় সম্প্রচার করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনী আনুষ্ঠানিকতার পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: শাহীনুজ্জামান মেলার স্টল পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক গৃহীত উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের তথ্য জনগন তথা প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে তুলে ধরা, সরকারের ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পনা, এমডিজি অর্জনে সরকারের সাফল্য প্রচার ও এসডিজি’র কর্মকান্ড সম্পর্কে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করার লক্ষে তিন দিনব্যাপী এই মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এ ছাড়াও মেলা মঞ্চে রূপকল্প-২০২১ ও ২০৪১ উন্নয়নের মহাসড়কে বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতির বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: শাহীনুজ্জামান। এ সময় সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষকসহ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, এবারও উপজেলা পরিষদ মাঠে আয়োজিত উন্নয়ন মেলায় ৭৩টি স্টল তৈরী করা হয়েছে এবং স্টলগুলো সরকারি দপ্তর, ব্যাংক-বীমা, জনপ্রতিনিধি, বীর মুক্তিযোদ্ধা, স্থানীয় নারী-পুরুষ উদ্যোক্তা, ব্যবসায়ী, গণমাধ্যমকর্মী, সোস্যাল মিডিয়া, মহিলা পরিষদ, পাবলিক লাইব্রেরী, কবি-শিল্পগোষ্ঠী ও ব্যবসায়ীদের মাঝে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। সরেজমিনে স্টলসমূহ পরিদর্শন করে দেখাগেছে, প্রতিটি স্টলেই শেখ হাসিনার ১০টি বিশেষ উদ্যোগের পাশাপাশি সরকারের নানাবিধ উন্নয়ন কার্যক্রম তুলে ধরার পাশাপাশি নিজের কর্মপরিকল্পনা ও সেবাদানের তথ্যসমূহ উপস্থাপন করা হচ্ছে। বিপুল সংখ্যক নানা শ্রেণী-পেশার উৎসুক জনতার পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে মেলার মাঠ। মেলার মাঠের বাহিরে শিশুদের বিনোদনের জন্য নাগরদোলা ও ঘোড়ার দোলনা সহ মুখরোচক খাবারের স্টল বসানো হয়েছে।  অন্যদিকে, মেলার দ্বিতীয় দিন আজ শুক্রবার “শেখ হাসিনার দর্শন বাংলাদেশের উন্নয়ন” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়াও প্রতিদিন মেলা মঞ্চে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাগণ কর্তৃক উন্নয়ন সংক্রান্ত পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপন করবেন। মেলা চলাকালিন প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে গম্ভীরাসহ উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি, সংগীত বিদ্যালয়, একুশে সাংস্কৃতিক সংগঠন ও লালন একাডেমির শিল্পীবৃন্দের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হবে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য দিন

সর্বশেষ
পঞ্জিকা
জুন ২০১৮
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি
« মে    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
ছবি গ্যালারি