১৮ জানুয়ারী, ২০১৮ । ৫ মাঘ, ১৪২৪

বঙ্গবন্ধুর দেশে ফেরার মাধ্যমে বাঙালি জাতি স্বাধীনতার পূর্ণতালাভ করে – মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক | জানুয়ারি ১১, ২০১৮ - ৯:৪৬ অপরাহ্ণ


মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর দেশে ফেরার মাধ্যমে বাঙালি জাতি স্বাধীনতার পূর্ণতালাভ করে। জাতির অগ্রযাত্রাকে বেগবান ও টেকসই করতে অবদান রাখার জন্য সংস্কৃতি কর্মীদের প্রতি আহ্বান তিনি আহবান জানান।

বুধবার রাজধানীর বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধুর ‘স্বদেশ প্রত্যাবর্তন’ দিবস উপলক্ষ্যে, ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরাম আয়োজিত আলোচনা সভা এবং শিল্পকর্ম প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে মহামান্য রাষ্ট্রপতি জনাব মো: আবদুল হামিদ এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে ইয়্যুথ বাংলা কালচারাল ফোরাম এর কেন্দ্রীয় সভাপতি,গুরুকুল প্রমুখ,কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক, সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন  সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর এমপি , ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরাম এর উপদেষ্টা শাহ আজিজুল হক, মোহাম্মাদ এ আরাফাত,  বিশিষ্ট চিত্র শিল্পি অধ্যাপক হাশেম খান।

বঙ্গবন্ধুর ‘স্বদেশ প্রত্যাবর্তন’ ও শিল্পি শেখ আসমানের  শিল্প কর্ম প্রদর্শনীর উদ্বোধনী ভাষণে রাষ্ট্রপতি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সবসময় একটি ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখতেন। তাঁর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে উন্নয়ন ও অগ্রগতির পথে। সেই অগ্রযাত্রাকে বেগবান ও টেকসই করতে আপনাদেরকেও অবদান রাখতে হবে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, একটি অসাম্প্রদায়িক জাতি গঠনে মুক্তবুদ্ধি ও শিল্প চর্চার বিকল্প নেই। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এটি গভীরভাবে উপলব্ধি করেছিলেন। তিনি ছিলেন একান্তভাবে শিল্প ও শিল্পীর পৃষ্ঠপোষক।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার পরপরই বঙ্গবন্ধু দেশীয় শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতির উন্নয়নে বহুমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন। তাঁরই ঐকান্তিক আগ্রহে ও দিক-নির্দেশনায় ১৯৭৪ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয়।

রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ বলেন, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধ, ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন এবং অন্যান্য গণতান্ত্রিক আন্দোলনে অবদানের জন্য গোটা জাতি সংস্কৃতি কর্মীদের কাছে ঋণী।

জাতির পিতার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে মহামান্য রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, বাংলাদেশের জনগণের কাছে তিনি অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন।

মহামান্য রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ নতুন প্রজন্মকে বিভিন্ন শৈল্পিক কর্মকান্ডের মাধ্যমে জাতির পিতার স্বপ্ন ও আদর্শে উদ্বুদ্ধ করার শিল্পীদের প্রতি আহ্বান জানান।

ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরামের সভাপতি সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর তার সভাপতির বক্তব্যে বলেন,   ২০২০ সাল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী এবং ২০২১ সাল বাংলাদেশের স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী। আমরা চাই জাতির জনকের জন্ম শতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর রক্তের উত্তরসুরি জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উদযাপন করতে। এই লক্ষ্যে ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরাম স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি তথা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে কাজ করে যেতে চায়।

আলোচনা সভা শেষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি জনাব মোঃ: আবদুল হামিদ কে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করেন ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফোরামের সভাপতি সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর । এ সময় মহামান্য রাষ্ট্রপতি এডভোকেট জনাব মোঃ আবদুল হামিদ সুফি ফারুক ইবনে আবুবকর এর হাতে রাষ্ট্রপতি ক্রেস্ট তুলে দেন।

শিল্পকর্ম প্রদর্শনী ও আলোচনা সভা শেষে  রাষ্ট্রপতি আর্ট গ্যালারি পরিদর্শন করেন। গ্যালারিতে শেখ আসমানের বিভিন্ন শিল্পকর্ম প্রদর্শিত হচ্ছে। রাষ্ট্রপতি সেখানে কিছু সময় অবস্থান করেন এবং ইয়ুথ কালচারাল ফোরামের সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন

শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য দিন

সর্বশেষ
পঞ্জিকা
জানুয়ারি ২০১৮
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি
« ডিসে    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  
ছবি গ্যালারি