বরিশালে দেশি টুপির চাহিদা বেশি

বরিশালে দেশি টুপির চাহিদা বেশি

বরিশালে দেশি টুপি : আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে নগরীর শপিং মলগুলোর সাথে সাথে ভিড় বেড়েছে নামাজের জায়না মাজ, দেশি টুপি ও আতঁর এর দোকান গুলোতে। সরোজ মিনে দেখাগেছে, পবিত্র ঈদুল ফিতরে পোশাক কেনাকাটার শেষ মূহুর্তে দেশি টুপি, জায়নামাজ ও আতঁরের দোকানগুলোতে ক্রেতা দের উপছে পড়া ভিড়। তবে এবছর ঈদ উপলক্ষে টুপির বাজারে বিদেশী টুপির চেয়ে দেশি  টুপির চা’হিদা বেশি ।

বরিশালে দেশি টুপির চাহিদা বেশি

নগরীর বেশ কয়েকটি মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে, চায়না, পাকিস্তানী, ইন্ডিয়ান ও তুর্কিসহ বিদেশী বিভিন্ন টু’পির সমাহার রয়েছে বড় বড় দোকান গুলোতে। তা সত্যেও দোকানীরা দেশি টু’পি বিক্রি করছে হাক ডাক দিয়ে। নগরীর চকবাজার, হেমায়েত উদ্দিন রোড ( গির্জ্জা মহল্লা ), সাগরদী বাজার, একাধিক মাদ্রাসার সম্মূখে ও নগরীর বিভিন্ন পোশাক বাজারের ফুটপাতে দোকান সাজিয়ে বসেছে বিক্রেতারা।

বরিশালে দেশি টুপির চাহিদা বেশি

পবিত্র ঈদ উৎসব শুরু হয় ঈদের নামাজ আদায়ের মধ্য দিয়ে আর ঈদের নামাজ আদায়ের জন্য টু’পি, আতঁর ও জায়না মাজ সবারই প্রয়োজন। তাই ঈদ ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে ক্রেতারা ছুটছেন টু’পির দোকানগুলোতে। রকমারী ডিজাইন আর বাহারী রঙের দেশি টু’পি ছোট-বড় সব বয়সের ক্রেতাদের আকৃষ্ট করছে।

 

বরিশালে দেশি টুপির চাহিদা বেশি

নগরীর হেমায়েত উদ্দিন রোডস্থ ঐতিহ্যবাহী কসাই মসজিদ সংলগ্ন আজাদ টু’পি ঘরের ব্যবসায়ী মো. মাহামুদ হোসেন জানান, দেশি আল-ফারুক, ফেমাস ও কবির কোম্পানীর টু’পির চা’হিদা বেশি ক্রেতাদের। ৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৪শ’ টাকা, চায়না টুপি ১শ’ টাকা ১৫০ টাকা। তবে মার্কেটে পাকিস্তানী টু’পির দাম বেশি হলেও মানসম্মত টু’পি দেশি পাতি বসানো টু’পি। যার মূল্য ৬০ টাকা ১’শ ৫০ টাকা। তুর্কি সুতার টু’পি ৬০ টাকা থেকে ১৩০ টাকা।

 

বরিশালে দেশি টুপির চাহিদা বেশি

অপরদি কে, আতরের দোকানগুলোতেও রয়েছে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়। জার্মানী, পাকিস্তানী, ভারত, দুবাই ও সৌদী আরব থেকে আমদানী করা আতরের চা’দা চোখে পড়ার মত।

নগরীর জামে কসাই মসজিদ মার্কেট, চকবাজার এবায়েউল্লাহ মসজিদ ও কাকলী মোড় কোরাআন মঞ্জিল স্টলে আতঁর বিক্রির জন্য প্রসিদ্ধ। দেশীয় আতঁর প্রতি ড্রাম ৪০ টাকা থেকে ১’শ টাকা, জার্মানীর বেলীর হাসনাহেনা রজনীগন্ধা প্রতি আউন্স ১’শ ৫০ টাকা থেকে ৪’শ টাকা, পাকিস্তানী গুলে লাল, ফেরদাউস জেসমিন নামের আতঁর ক্রেতাদের মাঝে বেশি চা’হিদা। এগুলো ৫’শ থেকে ৬’শ টাকা প্রতি আউন্স। জায়নামাজ পাওয়া যাচ্ছে দেশী ও বিদেশী। দেশী জায়নামাজ ২’শ টাকা থেকে ৫’শ টাকার মধ্যে, পাকিস্তানী জায়নামাজ ৪’শ টাকা থেকে ১ হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে।

এব্যপারে নগরীর বায়তুল মোকা ররম মসজিদের পেশ ইমাম আলহাজ্ব মাওলানা আব্দুল কাদের বলেন, মুসলমানদের কাছে ঈদের নামাজে অন্যতম একটি অনুষঙ্গ টু’পি। টু’পির রয়েছে আলাদা কদর। আর ঈদ এলে তো কথা নেই। নতুন টু’পি কিনতেই হবে। একইসাথে ঈদের সময়ই আতঁরের চা’হিদা থাকে সবচেয়ে বেশি। ঈদের দিন মনমাতানো সুরভিতে চারপাশ সুবাসিত করতে আতরের বিকল্প নেই।

আরও দেখুনঃ

You May Also Like

About the Author: Aurnab