স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে যশোরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শোভাযাত্রা

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে যশোরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শোভাযাত্রা

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে জেলা শহরে এক শোভাযাত্রা বের করেছে বীর -মুক্তিযোদ্ধারা।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে যশোরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শোভাযাত্রা
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে যশোরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শোভাযাত্রা

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শোভাযাত্রা: জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শুক্রবার বেলা সাড়ে ১০ টায় জেলা প্রশাসনের কালেক্টরেট চত্বর থেকে সুসজ্জিত ট্রাক নিয়ে এই শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি শহর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণসড়ক ঘুরে চৌগাছা ও ঝিকরগাছা উপজেলা হয়ে শার্শা-বেনাপোলে গিয়ে শেষ হবে।

download 5 স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে যশোরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শোভাযাত্রা

দুই দিনব্যাপী শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন- জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান। এর আগে, শহরের বকুলতলাস্থ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে ফুলের শ্রদ্ধা জানান বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ

শোভাযাত্রা উদ্বোধনকালে জেলা প্রশাসক বলেন, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ৫০টি কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন। সেই কর্মসূচির অংশ হিসেবেই আজ মুক্তিযোদ্ধাদের এই শোভাযাত্রা। মুক্তিযুদ্ধের সময়কালের বিভিন্ন ছবি আর বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের ছবি দিয়ে সাজানো ৫টি ট্রাকে ৫০ জন মুক্তিযোদ্ধা যশোরের আট উপজেলায় শোভাযাত্রা করবেন।আজ শুক্রবার প্রথমদিনে সদর থেকে শুরু হয়ে চৌগাছা হয়ে ঝিকরগাছা হয়ে শার্শা-বেনাপোলে গিয়ে শেষ হবে। ২য় দিন জেলা সদর থেকে বাঘারপাড়া হয়ে অভয়নগর হয়ে কেশবপুর তারপর মনিরামপুরে এসে শেষ হবে। প্রতিটি ট্রাকে ১০ টি করে পতাকা থাকবে এবং ১০ জন বীর মুক্তি

যোদ্ধা বসবেন। বীর মুক্তিযুদ্ধাদের সুবিধার্থে শোভাযাত্রায় একজন চিকিৎসক ও একটি এম্বুলেন্স এবং জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা বহরে সর্বদা উপস্থিত থাকবেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা

জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার এএইচএম মুযহারুল ইসলাম মন্টু বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে জেলা প্রশাসন ব্যতিক্রম উদ্যোগ নিয়েছে। সুসজ্জিত মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন ছবি আর পতাকা দিয়ে সাজানো ট্রাকে মুক্তিযোদ্ধারা জেলায় শোভাযাত্রা করছে। জেলা প্রশাসনের এই ব্যতিক্রম উদ্যোগে মুক্তিযোদ্ধারা সম্মানিত হয়েছেন। এই শোভাযাত্রার মাধ্যমে আমরা সবাই এক জায়গায় মিলিত হওয়ার সুযোগ পেয়েছি। ট্রাক শোভাযাত্রায় উদ্বোধনকালে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রফিকুল হাসানসহ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডাররা উপস্থিত ছিলেন।

আরও দেখুনঃ

You May Also Like

About the Author: Ratna Roy